জমকালো অনুষ্ঠানে শুরু রিও অলিম্পিক

স্পোর্টস রিপোর্ট:  বৈচিত্র্যপূর্ণ ব্রাজিলের রিও ডি জেনিরোতে জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শুরু হল বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্রীড়াযজ্ঞ অলিম্পিক গেমস। বাংলাদেশ সময় শনিবার ভোর ৫টায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শুরু হয়। আগামী ২১ আগস্ট পর্যন্ত চলবে স্বর্ণ জয়ের মহারণ।
বিভিন্ন প্রতিকূলতার মধ্য দিয়ে রিও অলিম্পিক শুরু হলো। রাজনৈতিক অস্থিরতার সঙ্গে জিকা ভাইরাস ও নিরাপত্তা শঙ্কাও আয়োজকদেরকে বিপদে ফেলে দিয়েছিল।
ব্রাজিলের ঐতিহাসিক মারকানা স্টেডিয়ামে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান দেখতে ৭৮ হাজার লোকের সমাগম হয়েছে। আর সারা বিশ্ব থেকে কয়েক শ’ কোটি মানুষ টিভির মাধ্যমে এই অনুষ্ঠান উপভোগ করেছেন।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রত্যাশা মতো ছিল ব্রাজিলের ঐতিহ্যবাহী বৈচিত্র্যপূর্ণ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সাম্বা স্কুলের প্রায় ছয় হাজার নৃত্যশিল্পী বিশেষ পোশাকে নৃত্যের মায়াজালে মোহিত করে রাখেন দর্শকদের। ১২০ বছরের অলিম্পিক ইতিহাসে কখনোই অ্যাথলেটিক্স মাঠের বাইরে হয়নি উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। এই প্রথম অলিম্পিকের উদ্বোধন হলো ফুটবলের স্টেডিয়াম মারাকানায়।
ব্রাজিলের ঐতিহ্যবাহী সাম্বা নৃত্য তো ছিলই, ছিল বিশ্বের সব থেকে দামি সুপারমডেল ব্রাজিলের জিসেল বুন্দচেন। তার ক্যাটওয়াকের সঙ্গে বড় একটি অংশ জুড়ে ছিল তৃতীয় লিঙ্গের ব্রাজিলিয়ান মডেল লি টির পরিবেশনা।
আয়োজক দেশ ব্রাজিল তাদের দেশীয় সংস্কৃতিকে প্রাধান্য দিয়ে তুলে ধরে বিশ্ববাসীর কাছে। ছিল আমাজনের অরণ্য ব্রাজিলের জন্য বিশাল গৌরবের বিষয়। আমাজনকে ফুটিয়ে তুলতে আরও ছিল বানর, ম্যাকাউ পাখি ও বৃষ্টির শব্দ।
অনুষ্ঠানে গান গেয়ে দর্শকদের মন মাতান ব্রাজিলের বিখ্যাত সব সঙ্গীত শিল্পীরা। লাইট অ্যান্ড সাউন্ড শো’র মাধ্যমে ফুটিয়ে তোলা হয় ব্রাজিলের পর্তুগীজ উপনিবেশের ইতিহাস। সঙ্গীত পরিবেশন করেন দেশটির খ্যাতিমান শিল্পী অ্যানিত্তা, কায়েতোনো ও গিলবার্তো গিল।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধি দল তাদের জাতীয় পতাকা নিয়ে মাঠে নেমেছিল। বাংলাদেশের অলিম্পিক দলও দেখা গেছে। ব্রাজিলের মাটিতে লাল-সবুজ পতাকা উড়েছে।
অনুষ্ঠানটি পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন বিখ্যাত পরিচালক ফার্নান্দো মেয়ারলেস। তার সঙ্গে ছিলেন আন্দুচা ওয়াশিংটন এবং ড্যানিয়েলা থমাস।
অলিম্পিকের ৩১তম এই আয়োজনে অংশ নিয়েছে ২০৬টি দেশ। যেখানে সাড়ে ১০ হাজারের বেশি অ্যাথলেট অংশ নেবেন। মোট ২৮টি ক্রীড়া ইভেন্টে ৩০৬টি পদকের জন্য লড়বে দেশসেরা এই অ্যাথলেটরা।

শেয়ার করুন

0 মন্তব্য: