ছুটি শেষ হয়নি মাহির

ঢাকার ক্যান্টনমেন্ট এলাকার সেনা মালঞ্চ মিলনায়তনে গত ২০শে জুলাই চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহির বিবাহোত্তর সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের পর শুরু হয় তার নতুন জীবন। তার এই নতুন জীবনের সময়টা কেমন কাটছে। কবে থেকে আবার শুরু করবেন নতুন কাজ। আগের মতো কি আবারও তাকে নিয়মিত বড় পর্দায় দেখতে পাবেন তার ভক্ত-অনুরাগীরা। এমন সব প্রশ্নের মুখে প্রায়ই পড়তে হচ্ছে তাকে। এসব প্রসঙ্গে মাহি মানবজমিনকে বলেন, আমি তো সবাইকে বলেছি বর্তমানে ছুটিতে আছি। কারণ, বিয়ের পর নিজের এই নতুন জীবনের জন্যই কাজটা আপাতত বন্ধ রেখেছি। ছুটির সময়গুলো নতুন পরিবারের মানুষদের দিতে চাই। আর নতুন জীবনের প্রতিটি সময়ই ভালো কাটছে। সকাল ৮টায় ঘড়িতে অ্যালার্ম দিয়ে রাখলেও দুপুর ১২টায় ঘুম ভাঙছে। চেষ্টা করছি রান্না শেখার। এদিকে মাহিকে নিয়ে পরিচালক বদিউল আলম খোকনের ‘হারজিৎ’ ছবির কাজ শুরু করার কথা এই মাসে। সেই ছবির প্রস্তুতির কথা জানতে চাইলে মাহি বলেন, সেপ্টেম্বরের আগে নতুন কোনো ছবিতে কাজ করা হয়তো হবে না। আর আমি শুনছি ‘হারজিৎ’ ছবির শুটিং শুরু হবে। তবে আমার সঙ্গে নতুন এ ছবির কাজের শিডিউল নিয়ে এখনও কারো কথা হয়নি। এ ছবিতে মাহির বিপরীতে অভিনয় করবেন সজল। ছবির শুটিং শুরুর আগেই তারা একসঙ্গে একটি ফটোসেশনেও অংশ নিয়েছিলেন। এদিকে অন্যান্য ছবির কাজের বিষয়ে মাহি বলেন, আমার হাতে থাকা শাহনেওয়াজ শানুর ‘পলকে পলকে তোমাকে চাই’ ও দীপংকর দীপনের ‘ঢাকা অ্যাটাক’ ছবির দুটির কাজ আগে শেষ করতে চাই। এ দুটি ছবিতে আমার বিপরীতে যথাক্রমে অভিনয় করেছেন বাপ্পি চৌধুরী ও আরিফিন শুভ। এ ছবি দুটির কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে। ২৪শে জুলাই সিলেটে একটি জমকালো অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মাহিকে ঘরে তুলে নেন তার বর অপু ও তার পরিবার। এরপর কোথাও ঘুরতে যাওয়া হয়েছে কি জানতে চাইলে মাহি বলেন, হানিমুন বলতে যে ঘোরাঘুরি এটা এখনও করিনি। তবে আমাদের আশপাশের জায়গায় নিয়মিত ঘোরাফেরা হচ্ছে। আমি শ্বশুরবাড়ির লোকজনদের কালা ভুনা মাংস রান্না করেও খাওয়ালাম। আশেপাশের এবং পারিবারিক লোকজন সকলেই বেশ আদর করছেন আমাকে। আর হানিমুনের ঘোরফেরাটা দুদেশে করার ইচ্ছে আছে। লন্ডনে ও আমেরিকায় যাওয়ার পরিকল্পনা করছি। সামনের ঈদে দেশে থাকা হচ্ছে না আমার। দুদেশেই ঘুরে বেড়ানোর পর সেপ্টেম্বরে শেষে নতুন ছবির কাজে ফেরার ইচ্ছে রয়েছে। সংসার ও ক্যারিয়ার নিয়ে দারুণ ব্যস্ত মাহি নিজের কাজ কমিয়ে দেবেন কি-না এই প্রশ্ন রাখা হলে বলেন, কাজ করব। কিন্তু হয়তো আগের মতো বছরে ৪-৫টি কাজ করা হবে না। বেছে বেছে বছরে ১-২টা কাজ করতে চাই। আমার ভক্তরা যেন ছবি দেখে হতাশ না হয়। আমি যেকোনো কাজেই দর্শকের মনমতো করতে চাই। দর্শককে হতাশ করার মতো কাজ আগেও করিনি, এখনও করতে চাই না। কয়েকদিন আগে সিলেট থেকে ঢাকায় এসেছিলেন মাহি। বিয়ের পর নিজের পরিবার ও বন্ধুদের খুব মিস করেছেন মাহি। তাই ঢাকায় সাতদিন তাদের সময় দিয়ে আবারও সিলেটে শ্বশুরবাড়ি ছুটেছেন তিনি। মাহি বলেন, আমার পরিবার ও বন্ধুদের সঙ্গে সাতদিন সময় কাটালাম। ঢাকায় গিয়ে সাতদিন থেকে অনেক ভালো লেগেছে আমার। এরপর আবার সিলেটে এসেছি। শ্বশুরবাড়িতে নিত্য নতুন রান্না শেখার চেষ্টা চলছে। মজার মজার খাবার রান্না করে সকলকে খাওয়াতে চাই। সেই চেষ্টায় চলছে এখন। আর ভক্তদের জন্য মাহি জানিয়েছেন, হতাশ হওয়ার কিছু নেই। খুব শিগগির নতুন ছবি নিয়ে তাদের সামনে হাজির হবেন তিনি।

শেয়ার করুন

0 মন্তব্য: