নূর হোসেনের সঙ্গে আরেক আসামির হাতাহাতি

স্টাফ রিপোর্টার নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জের চাঞ্চল্যকর সাত খুন মামলায় তদন্ত কর্মকর্তাকে জেরার বিরতির সময় খাবারের প্যাকেট নিয়ে প্রধান আসামি নূর হোসেনের সঙ্গে অপর আসামি র‌্যাবের হাবিলদার এমদাদ হোসেনের বাকবিতণ্ডা ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। এ সময় নূর হোসেনের সঙ্গে থাকা অন্য আসামিরাও এমদাদকে মারধর করেন।
শনিবার ২৪ সেপ্টেম্বর দুপুর আড়াইটায় নারায়ণগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচার কক্ষের ভেতরে গারদখানায় এ ঘটনা ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার সকাল থেকে শুরু হয় তদন্তকারী কর্মকর্তাকে জেরাগ্রহণ। দুপুর দেড়টা থেকে পৌনে ৩টা পর্যন্ত বিরতির সময়ে নূর হোসেন, র‌্যাবের চাকরিচ্যুত তিন কর্মকর্তা তারেক সাঈদ, আরিফ হোসেন ও এম এম রানাসহ ২৩ আসামি গারদখানার ভেতরেই ছিলেন।
বিরতির সময়ে তাদের জন্য ২৩ প্যাকেট বিরিয়ানির প্যাকেট আনা হয়। কিন্তু এমদাদ খাবারের প্যাকেট না পেয়ে হৈ-চৈ শুরু করেন। তখন নূর হোসেনের সঙ্গে তার বাকবিতণ্ডা হয়। এক পর্যায়ে নূর হোসেন এমদাদকে ধাক্কা মারেন।
এ নিয়ে তাদের মধ্যে হাতাহাতি ও চপেটাঘাতের ঘটনাও ঘটে। তাৎক্ষণিক নূর হোসেনের পক্ষে তার সঙ্গে থাকা মর্তুজা জামান চার্চিল, আলী মোহাম্মদসহ অন্যরাও এমদাদকে মারধর করেন। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে বিষয়টি মীমাংসা হয়।
আদালতের আসামিদের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা ফতুল্লা মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শাহজালাল  জানান, খাবার নিয়ে আসামিদের মধ্যে বাক্যবিনিময় হয়েছে। তখনই হয়তো এ ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটে।

শেয়ার করুন

0 মন্তব্য: