লক্ষ্মীপুরে ৭ ব্যক্তির কারাদণ্ড, ৬ লাখ টাকা জরিমানা

স্টাফ রিপোর্টার লক্ষ্মীপুর: চিকিৎসার নামে প্রতারণা, মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রি, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে ভেজাল খাদ্যদ্রব্য বিক্রিসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে লক্ষ্মীপুরে ৬টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ৬ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।
এসময় ৬ জনের ৬ মাস করে ও একজনের এক বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।
বৃহস্পতিবার ৮ সেপ্টেম্বর বিকেলে এ দণ্ড ও জরিমানা করা হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আরিফুল ইসলাম।
এর আগে সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ওইসব প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়ে ওই ৭জনকে আটক করে র‌্যাব-১১ লক্ষ্মীপুর ক্যাম্প।
দণ্ডপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিরা হল-মেডিনোভা ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক মুরাদ হোসেন, ভুয়া চক্ষু চিকিৎসক জাহাঙ্গীর হোসেন, ভুয়া টেকনিশিয়ান খোরশেদ আলম, লুভনা ফার্মেসির মালিক ভুয়া চিকিৎসক প্রদীপ মজুমদার, মা ডেন্টালের মালিক ভুয়া চিকিৎসক হুমায়ুন কবির, লাকি ডেন্টাল কেয়ারের মালিক মাহফুজুর রহমান, ভবানীগঞ্জ চৌরাস্তার রুচী বেকারির মালিক আবুল কালাম।
র‌্যাব ১১ লক্ষ্মীপুর ক্যাম্পোর কোম্পানি অধিনায়ক মেজর এ এম আশরাফুল ইসলাম জানান, লক্ষ্মীপুর জেলা শহরে বিভিন্ন বেকারি, ফার্মেসি ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে অভিযান চালানো হয়। এসময় বিভিন্ন অনিয়মের কারণে ৭ জনকে আটক করা হয়। পরে তাদের ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করে ৬জনকে ছয় মাস করে ও একজনকে একবছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এছাড়াও ৬টি প্রতিষ্ঠান থেকে ৬ লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

শেয়ার করুন

0 মন্তব্য: