পাকিস্তানের আইনমন্ত্রীর পদত্যাগ


ডেস্ক রিপোর্ট-রাজধানী অচল করে দেয়া কট্টরপন্থীদের সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচীর পর অবশেষে তাদের সঙ্গে সমঝোতায় পৌঁছেছে পাকিস্তানের সরকার। এই ঘটনার জেরে পদত্যাগ করেছেন দেশটির কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী জাহিদ হামিদ।
অফিসিয়াল সূত্র এবং সরকারি টেলিভিশন পিটিভি’র বরাত দিয়ে পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম ডন জানায়, শনিবার ফয়েজাবাদে কট্টরপন্থী আন্দোলনকারীদের ওপর পরিচালিত অভিযান এবং পরে আন্দোলনকারী নেতাদের সঙ্গে সরকারের সমঝোতার পরপরই এই পদত্যাগের ঘোষণা আসে।
উল্লেখ্য, আইনমন্ত্রীর পদত্যাগ ছিল ওই কট্টরপন্থীদের প্রধান দাবি। এই দাবিতে রাজধানীতে দীর্ঘ ১৯ দিনের অবস্থান নিয়েছিল তারা।
ডনের প্রতিবেদনে বলা হয়, রবিবার রাতে সরকার এবং কট্টরপন্থীদের মধ্যে সমঝোতার পরেই এই পদত্যাগের ঘোষণা আসে। তাকে অপসারণের দাবিতে দেশব্যাপী ছড়িয়ে পড়া সহিংসতায় নিহত হয় অন্তত ৬ জন। এছাড়া আহত হয় শতাধিক।
পিটিভি জানায়, দেশের পরিস্থিতি শান্ত করার জন্যই প্রধানমন্ত্রী শহিদ খাকান আব্বাসির কাছে নিজের পদত্যাগপত্র জমা দেন জাহিদ।
নির্ভরযোগ্য সূত্র ডনকে জানায়, সোমবার তার পদত্যাগের আবেদন মঞ্জুর করবেন প্রধানমন্ত্রী।
হামিদ বলেন, ‘ব্যক্তিগত কারণে আমি পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’
প্রসঙ্গত, ধর্ম অবমাননার দায়ে জাহিদ হামিদের পদত্যাগের দাবিতে পাকিস্তানের ফয়েজাবাদে জড়ো হয় বেশ কয়েকটি কট্টরপন্থী সংগঠন। যাদের মধ্যে ছিল- তেহরিক-ই-খতমে-নব্যুওয়াত, তেহরিক-ই-লাব্বাইক ইয়া রাসুল আল্লাহ (টিএলওয়াই) এবং সুন্নি তেহরিক পাকিস্তান (এসটি)।
এদিকে, জাহিদের পদত্যাগের ঘোষণার পর আন্দোলন তুলে নেয়ার কথা জানিয়েছে কট্টরপন্থী সংগঠনগুলো।
তেহরিক-ই-লাবাইক গ্রুপের মুখপাত্র এজাজ আশরাফির ভাষায়, ‘আমাদের মূল দাবি মেনে নেয়া হয়েছে। সরকার আইনমন্ত্রীর অব্যাহতি ঘোষণা করলেই আজ আমরা অবস্থান তুলে নেব।’

শেয়ার করুন

0 মন্তব্য: