ট্রাম্পকে নিয়ে উদ্বিগ্ন নাগরিকদের প্রতি ওবামার চিঠি


বিশ্বজমিন-যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। কৌশলী এবং বাকপটু ওবামা বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতিতে সক্রিয় না থাকলেও, জনমনে তার তুমুল গ্রহণযোগ্যতা এবং জনপ্রিয়তা এখনো বিদ্যমান। বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের অনেক বিতর্কিত কর্মকান্ড সে দেশের নাগরিকদের চিন্তিত করে তুলেছে। এ নিয়ে অনেকেই আছেন ভীষণ উদ্বেগে। গভীর রাজনৈতিক সঙ্কটের আশঙ্কা দুশ্চিন্তার ভাঁজ ফেলছে তাদের কপালে। সঙ্কটাপন্ন এই সময়ে তারা দ্বারস্থ হচ্ছেন বিচক্ষণ এবং দূরদৃষ্টি সম্পন্ন সাবেক প্রেসিডেন্ট ওবামার। প্রতিদিন অসংখ্য চিঠি লেখা হচ্ছে তার উদ্দেশ্যে। এসব চিঠির জবাবে একটি চিঠি লিখেছেন ওবামা। ইয়াহু নিউজকে দেয়া এ চিঠিতে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের জনসাধারণকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনারা আশা হারাবেন না। হতাশ হবেন না। আমাদের দেশের উন্নতি কখনোই সমান্তরাল রেখায় আঁকা হয় নি। দু’পা এগোনোর সঙ্গে এক পা পেছানোর অজস্র নমুনা যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতিতে বিদ্যমান। তবে এ সকল বাধা-বিপত্তি উপেক্ষা করেই দেশ ক্রমাগত সামনে এগিয়ে গেছে। সামনে এগিয়ে যাওয়ার এই ধারাই আজকের যুক্তরাষ্ট্রকে বৈশ্বিক পরাশক্তি হিসেবে দাঁড় করিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের ভাগ্য কখনো একজন মানুষের হাতে নির্ধারিত হয় নি। অতএব, নিরাশ হবার কোন কারণ নেই। উল্লেখ্য, হোয়াইট হাইজ ছেড়ে যাবার পর থেকে রাজনৈতিক সম্পক্ততা তেমন একটা রাখেন নি ওবামা। তবে ট্রাম্প প্রশাসনের কয়েকটি সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছেন তিনি। এর মধ্যে অন্যতম হলো, আভিবাসি শিশুদের আগমন বিলম্বিত করা এবং সুলভ স্বাস্থ্যবীমা যা ওবামাকেয়ার নামে পরিচিত- বাতিল করার সিদ্ধান্ত। এছাড়াও, যুক্তরাষ্ট্রের তরুণ প্রজন্মকে রাজনীতিতে অংশগ্রহণ করতে উদ্বুদ্ধ করেছেন সাবেক এই প্রেসিডেন্ট। দায়িত্ব ছেড়ে দেবার পর প্রথম জনসম্মেলনে বক্তৃতা করতে গিয়ে তিনি বলেন, প্রেসিডেন্ট পরবর্তী এই সময়ে আমার মূল দায়িত্ব তরুণদের উদ্বুদ্ধ করা। নতুন প্রজন্ম রাজনীতিতে প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণ করলে এসব তরুণের হাত ধরেই দেশ সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে যাবে বলে মত দেন তিনি। জনগণকে উদ্দেশ্য করে লেখা সাম্প্রতিক চিঠিতেও তরুণদের রাজনীতিতে অংশগ্রহণের ওপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি। তিনি চিঠিতে লিখেছেন, আমরা যখনই গণতন্ত্রকে অবধারিত বলে ভেবে নিয়েছি, তখনই বিপর্যয় নেমে এসেছে। গণতন্ত্র একটি চলমান প্রক্রিয়া। প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণের মাধ্যমেই একে সচল রাখতে হয়। এবং এ প্রক্রিয়াকে সচল রাখতে হলে- মানুষকে, বিশেষ করে, তরুণদের রাজনীতিতে অংশগ্রহণ করতে হবে। যতদিন পর্যন্ত এই তরুণরা যুক্তরাষ্ট্রের হাল ধরে রাখছে, ততদিন আমরা পথ হারাবো না। প্রেসিডেন্ট ওবামার এই আবেগঘন চিঠি জনমনে আশার সঞ্চার করেছে। বর্তমান প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের অনবরত অসংযত আচরণ এবং নানা প্রশাসনিক কেলেংকারিতে জড়ানোর ঘটনায় উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে রাজনৈতিক অঙ্গন। এই পরিস্থিতিতে যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের বেড়ে চলা উদ্বেগ প্রশমনে একটু হলেও শান্তির প্রলেপ মাখিয়ে দিচ্ছে সাবেক প্রেসিডেন্ট ওবামার এই চিঠি। তবে চিঠিতে যে বার্তা তিনি দিয়েছেন, ট্রাম্পের পড়তি জনপ্রিয়তাকে তা আরো অবনমিত করবে- তা বুঝতে কষ্ট হবার কথা নয়।

শেয়ার করুন

0 মন্তব্য: