Previous
Next

সর্বশেষ

বিজয়নগরে সড়ক দূর্ঘটনায় রিকশা চালক নিহত

বিজয়নগরে সড়ক দূর্ঘটনায় রিকশা চালক নিহত


 বিজয়নগর প্রতিনিধি-
ব্রা‏হ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে সড়ক দূর্ঘটনায় সাহাবুদ্দীন(১৬) নামে এক রিকশা চালক নিহত হয়েছে। আজ শুক্রবার বিকাল ৩.৩০টায় ঢাকা- সিলেট মহাসড়কে ইসলামপুর নামক স্থানে ব্রা‏হ্মণবাড়িয়া পলিটেকনিকেলের সামনে এ দূর্ঘটনা ঘটে। এ সময় প্রায় এক ঘন্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে।  জানা যায়, সিলেট থেকে ছেরে আসা ধানবাহী একটি ট্রাক(চট্র মেট্রা-ট ১১-০০২২) মাঝসড়কে উল্টে গেলে ট্রাকের নিচে চাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই নিহত হয় রিকশাচালক সাহাবুদ্দীন, সে বিজয়নগর উপজেলার বীরপাশা গ্রামের নাজু মিয়ার ছেলে বলে জানা যায়। খবর পেয়ে ইসলামপুর পুলিশ ফাড়িঁ, হাইওয়ে এবং মাধবপুর ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে এসে লাশ উদ্ধার করে যান চলাচল স্বাভাবিক করতে সম হয়। এ ব্যপারে মাধবপুর ফায়ার সার্ভিসের সাব অফিসার আব্দুস ছালাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।
বিজয়নগরে প্রেসক্লাব বিজয়নগরের ইফতার, দোয়া ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

বিজয়নগরে প্রেসক্লাব বিজয়নগরের ইফতার, দোয়া ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

বিজয়নগর প্রতিনিধি-
বিজয়নগরে প্রেসক্লাব বিজয়নগরের ইফতার, দোয়া ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে, উপজেলা মিলনায়তনে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রেসক্লাব সভাপতি মৃণাল চৌধুরীর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আয়কর উপদেষ্টা জহিরুল ইসলাম ভূইয়া, বিজয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলী আর্শাদ, উপজেলা ভাইস্ চেয়ারম্যান বাবুল আক্তার, ব্র‏াহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক দীপক চৌধুরী বাপ্পী, ইছাপুরা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান জিয়াউল হক বকুল, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন- সাধারন সম্পাদক হোসাইন মোহাম্মদ দুলাল, ইছাপুরা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ইসাক সরকার, প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি বাংলা টিভির বিজয়নগর প্রতিনিধি শামসুল ইসলাম লিটন, কার্যকরী সদস্য সারুয়ার হাজারী পলাশ, সাংবাদিক লিংকন চৌধুরী প্রমুখ, আলোচনা শেষে জেলা প্রেসক্লাবের নব নির্বাচিত সাধারন সম্পাদকের হাতে প্রেসকাবের প থেকে উপহার তুলে দেন বাংলা টিভির প্রতিনিধি শামসুল ইসলাম লিটন ও সাধারন সম্পাদক জিয়াদুল হক বাবু।
বিজয়নগরে বিপুল পরিমান ফেন্সিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

বিজয়নগরে বিপুল পরিমান ফেন্সিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক



শামসুল ইসলাম লিটন- বিজয়নগরে ৯৭৫ বোতল ফেন্সিডিলসহ মাহেব আলী(৪৫)নামক এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ। পুলিশ জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাত ১২টায় বিজয়নগর থানার অফিসার ইনচার্জ আলী আর্শাদ সঙ্গীয় ফোর্সসহ উপজেলার কাঞ্চনপুর থেকে তাকে আটক করে, এ সময় মাহেব আলীর কাছ থেকে ৯৭৫ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে তার সহযোগী মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়।  সে বিজয়নগর উপজেলার নলগরিয়ার শামসু  মিয়ার ছেলে বলে জানা যায়। এ ব্যাপারে বিজয়নগর থানার অফিসার ইনচার্জ আলী আর্শাদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, মাদকের বিরুদ্ধে বিশেষ অভিযান চলছে বিজয়নগরকে মাদকমুক্ত করতে আমরা দৃঢ় প্রতিজ্ঞ তার বিরুদ্ধে  আইনগত ব্যাবস্থা নিয়ে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
অপরিশোধিত পানি দিয়ে রান্না, কেএফসিকে লাখ টাকা জরিমানা

অপরিশোধিত পানি দিয়ে রান্না, কেএফসিকে লাখ টাকা জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক
রাজধানীর ধানমন্ডির কেএফসি রেস্টুরেন্টকে ১ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। রান্নায় অপরিশোধিত পানি ব্যবহার করায় এ জরিমানা করা হয়।
 
বুধবার দুপুরে র‌্যাব সদর দফতরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারওয়ার আলমের নেতৃত্বে কেএফসিতে এই অভিযান পরিচালনা করা হয়।
 
র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম বলেন, কেএফসিতে ব্যবহৃত পানি পিউরিফাইড না। সব খাবার অপরিশোধিত পানি দিয়ে রান্না হচ্ছে। এজন্য তাদের ১ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।
 
তিনি আরো বলেন, কেএফসির প্রাইস লিস্টে দেখলাম একটি চিকেন ফ্রাই তৈরিতে তাদের ৩১ টাকা ৭৫ পয়সা খরচ হয়, অথচ তারা ক্রেতাদের কাছে ১৩৯ টাকায় এটা বিক্রি করছেন। একজন ভোজনবিলাসী অতিরিক্ত দাম দিয়ে এখানে খাবার খাচ্ছেন। তারপরেও তারা অপরিশোধিত পানি দিয়ে রান্না করছে।
 
কেএফসির ধানমন্ডি শাখার ইনচার্জ সুদীপ কুমার মণ্ডল বলেন, পানি পরিশোধনের যন্ত্রটি সকালে ঠিক ছিল, কিন্তু এখন কাজ করছে না।
শুটিং করতে গিয়ে ইয়াবা ব্যবসা, আটক ১০

শুটিং করতে গিয়ে ইয়াবা ব্যবসা, আটক ১০

কক্সবাজার প্রতিনিধি
এক লাখ আট হাজার ইয়াবাসহ কক্সবাজারে শুটিং করতে আসা ‘সরকার প্রোডাকশন হাউস’ নামে একটি শুটিং টিমের ১০ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-৭ কক্সবাজার ক্যাম্পের সদস্যরা। বুধবার দুপুরে পর্যটন শহরের কলাতলীর সার্ফিং চত্বর থেকে তাদের আটক করা হয়। এ সময় তাদের ব্যবহৃত একটি মাইক্রোবাসও জব্দ করা হয়।
আটকরা হলেন- রাজশাহীর কুখ্যাত মাদকচক্রের প্রধান আসলাম সরকার (৪০), ড্রাইভার মাসুদ রানা (৩২) ও শুটিং টিমের ৮ আর্টিস্টসহ মোট ১০ জন।
র‌্যাব-৭ এর কক্সবাজারের কোম্পানি কমান্ডার মেজর রুহুল আমিন বলেন, মিউজিক ভিডিও করার নামে কক্সবাজার এসে ইয়াবা নিয়ে ফেরার পথে রাজশাহীভিত্তিক মাদকচক্র ‘সরকার প্রোডাকশন হাউস’র ১০ সদস্যকে আটক করা হয়েছে।
তিনি জানান, আসলাম সরকার রাজশাহীর মাদক চক্রের প্রধান। তিনি নানা সময় নানা বেশ ধরে কক্সবাজার থেকে ইয়াবা পরিবহন করতেন। এবার তিনি মিউজিক ভিডিওর শুটিংয়ের নাম দিয়ে ইয়াবা নিতে আসেন। ইয়াবা কিনে মাইক্রোবাসযোগে রাজশাহী ফেরার পথে তাদেরকে ইয়াবাসহ আটক করা হয়।
মেজর রুহুল আমিন আরও বলেন, তাদের ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে থানায় হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।
সৌদিতে পালিয়ে বাঁচা বাংলাদেশি নারীদের মুখে নিপীড়নের বর্ণনা

সৌদিতে পালিয়ে বাঁচা বাংলাদেশি নারীদের মুখে নিপীড়নের বর্ণনা

শতাধিক বাংলাদেশি গৃহপরিচারিকা সৌদি আরবে নিয়োগদাতাদের নির্যাতন থেকে পালিয়ে দেশে ফিরেছে। দেশ ফিরতে তাদের মাসের পর মাস অপেক্ষা করতে হয়েছে। কখনও বা কয়েক বছর। বাংলাদেশি ও সৌদি কর্তৃপক্ষের তরফে তাদের দেশে ফিরতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র প্রস্তুতে এ সময় লেগেছে। স্থানীয় এনজিও কর্মীদের তথ্যমতে, দেশে ফেরা এসব গৃহপরিচারিকাদের বেশিরভাগই যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছে। ইংল্যান্ড ভিত্তিক অনলাইন সংবাদমাধ্যম মিডল ইস্ট আই এর এক রিপোর্টে এসব কথা বলা হয়েছে।
প্রতিবেদনে বলা হয়, ওই গৃহপরিচারিকাদের ওপর হওয়া নির্যাতনের সাক্ষ্য বহন করা কিছু ছবি মিডল ইস্ট আই’ এর কাছে এসেছে। এতে দেখা গেছে নির্যাতিতা এসব নারীর শরীরে ক্ষত, মারধোরের দাগ, পোড়া দাগ এমনটি ছিদ্র করার চিহ্নও রয়েছে।
বাংলাদেশে ফেরা এমন একজন ২১ বছরের রোবিনা। সৌদিআরবে তিনি ছয়মাস গৃহপরিচারিকা হিসেবে কাজ করেছেন। মিডল ইস্ট আইকে রোবিনা বলেন, আমার গৃহকর্তা আমাকে বেশ কয়েকবার যৌন নির্যাতন করার চেষ্টা করে। যখনই আমি না বলতাম তারা আমি বাধা দেয়া বন্ধ করার আগ পর্যন্ত মারধোর করতো।
যৌন নির্যাতনের শিকার হওয়ার ফলে এই পরিচারিকাদের অনেকের জন্য জীবনের বাস্তবতা পাল্টে গেছে। তাদের এই কলঙ্ক বয়ে বেড়াতে হচ্ছে নির্মমভাবে। অনেকতে তাদের পরিবার প্রত্যাখ্যান করেছে। কাউকে আবার একঘরে করে রেখেছে স্থানীয় সম্প্রদায়। 
এমনই এক নারীকে তার স্বামী ফেরত নিতে অস্বীকার জানালে বাধ্য হয়ে এখন তার আশ্রয় হয়েছে স্থানীয় এক এনজিওর আশ্রয়কেন্দ্রে। বিশ্বের সর্ববৃহৎ এনজিও ব্র্যাকের নির্যাতনের শিকার বাংলাদেশি শ্রমিকদের জন্য একটি অভিবাসন কার্যক্রম রয়েছে। ব্র্যাক জানায়, তাদের কাছে এমন কয়েক ডজন পরিচারিকা এসেছেন যারা যৌন নিপীড়িত হওয়ার কারণে পরিবারের কাছে প্রত্যাখ্যাত হয়েছেন।
বাংলাদেশি এক গৃহকর্মীকে এভাবে ইস্ত্রি দিয়ে পুড়িয়েছে তার নিয়োগদাতা
ব্র্যাকের অভিবাসন কার্যক্রমের কর্মকর্তা শরিফুল হাসান বলেন, দেশে ফেরা নারীদের প্রত্যেকেই কোন না কোন নির্যাতনের শিকার হয়েছেন।  মিডল ইস্ট আই’কে তিনি বলেন, প্রায় প্রত্যেকেই নির্যাতনের শিকার হয়েছেন- যৌন নির্যাতন, শারীরিক নির্যাতন আর মজুরি না দেয়া। কেই কেউ বলেছেন, তাদের নিয়োগদাতা পরিবারের পুরুষ সদস্যরা ধর্ষণ করেছে। আবার অন্যরা অভিযোগ করেছেন, তাদের যৌন বাণিজ্যে নামতে বাধ্য করা হয়েছে। প্রতিবাদ করলে নিপীড়ন করা হয়েছে।
তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশি গৃহপরিচারিকাদের নির্যাতন করায় অভিযুক্ত কোন নিয়োগদাতাকেই সৌদি কর্তৃপক্ষ গ্রেপ্তার করেনি বা তাদের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিকভাবে অভিযোগ আনা হয় নি। ওই নিয়োগকর্তারা জানেন যে, তারা যদি একজন বাংলাদেশি মেয়েকে নির্যাতন করেন তাহলে কিছুই হবে না।
রিপোর্টে বলা হয়, নির্যাতনের তীব্রতার মুখে এসব নারী কর্মস্থল থেকে পালিয়ে বাইরের সহায়তা নিতে বাধ্য হন। কয়েকজন পালিয়ে আশ্রয় নেন সৌদি আরবে বাংলাদেশি দূতাবাস পরিচালিত কয়েকটি সেফহাউসে। অন্য গৃহকর্মীরা স্থানীয় সৌদি কর্তৃপক্ষের দ্বারস্থ হন। পরে তাদের বাংলাদেশে প্রত্যাবাসন করার আগ পর্যন্ত অভিবাসন ক্যাম্পে পাঠানো হয়। 
ব্র্যাকের অভিবাসন কার্যক্রমের তথ্য অনুযায়ী, সম্প্রতি ফেরাদের নিয়ে এবছর দেশে ফেরা গৃহপরিচারিকাদের সংখ্যা কমপক্ষে ২০০০ হবে।
এসব পরিচারিকাদের ফেরত আনা হয়েছে ঠিকই। কিন্তু এখনও সৌদি আরবের নানা অভিবাসন ক্যাম্প আর আশ্রয়কেন্দ্রে প্রত্যাবাসনের অপেক্ষায় দিন গুনছেন শ’ শ’ নারী।
এ নিয়ে মন্তব্য চেয়ে সৌদি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করলেও কোন জবাব পায় নি মিডল ইস্ট আই।
চিরনিদ্রায় শায়িত মুক্তামনি

চিরনিদ্রায় শায়িত মুক্তামনি

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি
সাতক্ষীরা সদর উপজেলার দক্ষিণ কামারবায়সা গ্রামে পারিবারিক কবরস্থানে দাদার কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত করা হয়েছে মুক্তামনিকে।
বুধবার জোহরের নামাজের পর বেলা আড়াইটার দিকে দক্ষিণ কামারবায়সা জামে মসজিদের পার্শ্ববর্তী মাঠে জানাজার নামাজ শেষে তাকে দাফন করা হয়।
এর আগে দু’দফা মুক্তামনিকে গোসল করানো হয়। প্রথম দফায় গোসলের পর তার কাফনের কাপড় রক্তে ভিজে যায়। পরে আবারও তাকে গোসল করানো হয়। তার জানাজার জানাজে এলাকার শত শত মানুষ শরীক হন।
মুক্তামনির জানাজায় অংশ নেন উপজেলা চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান বাবু, সদর হাসপাতালের আরএমও ডা. ফরহাদ জামিলসহ স্থানীয় গ্রামবাসী।
এদিকে বুধবার সকাল ৭টা ২৮ মিনিটে নিজ বাড়িতে রক্তনালীর টিউমারে আক্রান্ত মুক্তামনি মারা যায়। এসময় তার বয়স হয়েছিলো ১২ বছর।
তার মৃত্যুর খবর পেয়ে সকালেই  মুক্তামনির বাড়িতে ছুটে যান সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার সাজ্জাদুর রহমান, সিভিল সার্জন ডা. তওহীদুর রহমান, সাতক্ষীরা সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান বাবু। এসময় বিভিন্ন গণমাধ্যমে কর্মরত সাংবাদিকরাও ছিলেন।
বাবার কবরে চিরনিদ্রায় শায়িত তাজিন আহমেদ

বাবার কবরে চিরনিদ্রায় শায়িত তাজিন আহমেদ

বিনোদন প্রতিবেদক
অভিনেত্রী তাজিন আহমেদের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। বুধবার (২৩ মে) বাদ জোহর জানাজা শেষে বনানী কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। বাবা কামাল উদ্দিন আহমেদের কবরেই সমাহিত করা হয়েছে তাজিনকে।
বনানী কবরস্থানের ৯৫৭ নম্বর কবরটি তাজিন আহমেদের বাবার। তাজিন নিজেই বাবার কবরের নাম ফলকটি করিয়েছিলেন। সেই ফলকের প্রথম শব্দটি ছিলো ‘আব্বু আমার’। এরপর বাবার নাম, জন্ম ও মৃত্যুর তারিখ লেখা। নিয়তির কী পরিহাস, সেই একই কবরেই এখন চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন তাজিন আহমেদ।
তাজিন আহমেদের জানাজা অনুষ্ঠিত হয় গুলশানের আজাদ মসজিদে। এতে অংশ নিয়েছিলেন তার আত্মীয়-স্বজন ও শোবিজের তারকারা।
প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার (২২ মে) সকাল ১০টার দিকে হৃদরোগে আক্রান্ত হন তাজিন আহমেদ। এরপর তাকে উত্তরার রিজেন্ট হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় তিনি বিকাল সাড়ে ৪টা নাগাদ মৃত্যুবরণ করেন।
রোনালদোর চেয়ে ১৫ বছর পিছিয়ে সালাহ: ক্লপ

রোনালদোর চেয়ে ১৫ বছর পিছিয়ে সালাহ: ক্লপ

স্পোর্টস ডেস্ক
সালাহ বনাম রোনালদো। চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালে কে কাকে টেক্কা দিতে পারবেন? প্রশ্নটা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালের সপ্তাহ খানেক আগে থেকেই জোরদার হয়ে উঠেছে। লিভারপুল সমর্থকরা জানেন রোনালদোকে না আটকাতে পারলে রিয়ালের টানা তিন বার ট্রফি জয়ের নজির থামানো সম্ভব নয়।
এক বার রোনালদোকে আটকাতে পারলেই বাকি দায়িত্বটা থাকবে তাদের আক্রমণ ভাগের। বিশেষ করে মোহম্মাদ সালাহর। মিশরের স্ট্রাইকার গোটা মৌসুমেই দারুণ ফর্ম দেখিয়েছেন। রোমা থেকে লিভারপুলে সই করার পরে চলতি মৌসুমে তিনি প্রিমিয়ার লিগে ৩২টি গোল-সহ সব টুর্নামেন্ট মিলিয়ে ৪৪টি গোল করে ফেলেছেন। সালাহ, রবার্তো ফির্মিনহো এবং সাদিও মানের ত্রিফলা আক্রমণের সাহায্যেই এ বারে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গোল দেওয়ার দিক থেকে সবচেয়ে এগিয়ে ইংরেজ ক্লাবটি। ২৫ বছর বয়সী সালাহর যে ভয়ঙ্কর ফর্ম দেখে অনেকে তার সঙ্গে রোনালদোর তুলনা শুরু করে দিয়েছেন।
তবে, লিভারপুল ম্যানেজার কিন্তু  বলে দিচ্ছেন সালাহ যতই ফর্মে থাকুন, তার সঙ্গে রোনালদোর তুলনা করার সময় এখনও আসেনি। এখনও সালাহ রোনালদোর চেয়ে ১৫ বছর পিছিয়ে আছেন। ক্লপ বলেন, 'সালাহ চলতি মৌসুমে দারুণ খেলেছে। কিন্তু এটা ভুললে চলবে না ক্রিশ্চিয়ানোর ক্যারিয়ারে এ রকম ১৫টা মৌসুম রয়েছে। সব মিলিয়ে ৪৭০০০ গোল করেছে রোনালদো।’
 তিনি যোগ করেন, 'কেন সালাহর সঙ্গে ক্রিশ্চিয়ানোর তুলনা করতে যাবো? পেলে যখন খেলতেন কেউ তার সঙ্গে অন্য কারও তুলনা করত না। এখন রোনালদো আর মেসি আছে। যারা কয়েক বছর ধরে দাপট দেখাচ্ছে।’
বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের সাবেক ম্যানেজার মনে করেন, ব্যক্তি নয়, দল নিয়ে ভাবা উচিত এখন। তিনি বলেন, ‘ব্যক্তিগত ভাবে এক জন কতটা ভাল খেলে সেটাই শুধু দেখার নয়। আসল কথাটা হল, ভাল ফুটবল খেলা। আর সে জন্য দলে অন্য  ফুটবলারদেরও প্রয়োজন রয়েছে।’
পাশাপাশি তার দল ট্রফি জেতার দৌড়ে রিয়ালের চেয়ে পিছিয়ে থাকলেও সেটা মাথায় রাখতে চান না ক্লপ। তিনি বলছেন, ‘২০০৫ সালেও তো চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালে আমাদের কেউ ট্রফি জেতার দৌড়ে এগিয়ে রাখেনি। শেষ পর্যন্ত কিন্তু লিভারপুলই জিতেছিল। এ বারও অনেকটা সে রকমই পরিস্থিতি।'
আল্লাহর সাক্ষাতই রোজার প্রতিদান

আল্লাহর সাক্ষাতই রোজার প্রতিদান

নিজস্ব প্রতিবেদক
রহমতের চতুর্থ দিন আজ। মাহে রমজান বান্দাহকে সিয়াম সাধনার মাধ্যমে আল্লাহর রহমত প্রাপ্তির সুযোগ করে দেয়। রোজাদারদের জন্য সবচেয়ে বড় সুসংবাদ হচ্ছে- রোজার প্রতিদান।
মূলত মহান আল্লাহ পাকের দিদার (সাক্ষাত) লাভ করাই হচ্ছে রমজানের আসল প্রতিদান। আর সেই প্রতিদান আল্লাহ রাব্বুল আলামীন নিজ হাতেই দেবেন। যা রমজান মাস ছাড়া অন্য কোনো মাসে নেই।
ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের এবাদত বন্দেগি সবকিছুর লক্ষ্য উদ্দেশ্য একটাই- আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের সন্তুষ্টি অর্জন। রোজা রাখার উদ্দেশ্যও অভিন্ন। রোজার রাখায় আল্লাহকে পাওয়ার সুযোগ রয়েছে। অর্থাৎ রোজার প্রতিদান হিসেবে মহান আল্লার দিদার লাভ করা যায়।
এ প্রসঙ্গে সাহাবি হযরত আবু হুরায়রা (রাদি) বলেন, রসূলে পাক (সা.) এরশাদ করেছেন, মানুষের প্রতিটি সৎকাজের বিনিময়ে দশগুণ থেকে সাতশ গুণ পর্যন্ত সওয়াব (পুণ্য) দান করা হয়।
আল্লাহ তাআলা এরশাদ করেন, ‘ইল্লাচ্চাওমা ফাইন্নাহু লি ওয়া আনা আজজিবিহী।’ কিন্তু রোজা এর ব্যতিক্রম। সেটা আমার জন্য, আমিই এর প্রতিদান দেবো। (রোজাদারের জন্য কী প্রতিদান রয়েছে তার উত্তরে স্বয়ং) আল্লাহ পাক আরো বলেন, বান্দা তার ইচ্ছা ও আহার শুধু আমারই কারণে ছেড়ে দেয়। রোজাদারের জন্য দুটি খুশি একটি ইফতারের সময় অন্যটি আল্লাহ তাআলার সঙ্গে সাক্ষাতের সময়....। (সহিহ মুসলিম)
তাফসীর গ্রন্থে হাদিসে কুদসীর এ বাণীর অর্থ , ‘রোজার প্রতিদান আমি নিজেই হবো। তার মানে রোজা রেখে রোজাদার আল্লাহকে পেয়ে যায়।'
মূলকথা, রোজার প্রতিদান হচ্ছে আল্লাহর সঙ্গে দেখা-সাক্ষাত। আল্লাহ নিজেই বান্দার সঙ্গে সাক্ষাত করবেন।
মাহে রমজানে যারা ইসলামী শরীয়তের হুকুম আহকাম মেনে রোজা রাখবে, সৎকাজ করবে তাদের জন্য আল্লাহর পক্ষ থেকে ‘নিজ হস্তে প্রতিদান’ তো আছেই, সেই সঙ্গে আরো কত পুরস্কার যে রয়েছে তা বর্ণনা করে শেষ করা যাবে না। রোজাদারের ঘুম ও নীরবতা পর্যন্ত এবাদত হিসেবে গণ্য করা হবে।
সাহাবি হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আওফা (রাদি.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, হযরত মোহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন,  রোজাদারের ঘুমানো এবাদত, তার নীরবতা হলো তাসবীহ পাঠ করা, তার দোয়া কবুল এবং তার আমল মকবুল। (শুয়াবুল ঈমান, ৩য় খণ্ড, ৪১৪ পৃষ্ঠা)
মাহে রমজানে রোজাদারের জন্য প্রতিপালকের পক্ষ থেকে প্রতিদানের শেষ নেই। দেখুন না, একজন রোজাদার কী সৌভাগ্যবান।
উম্মুল মুমেনিন সৈয়্যদাতুনা আয়েশা সিদ্দিকা রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত, প্রিয়নবী হযরত মোহাম্মদ  (সা.) বলেছেন, যে ব্যক্তি রোজা অবস্থায় ভোরে জাগ্রত (উঠে) হয়, তার জন্য আসমানের দরজা খুলে দেয়া হয়। তার অঙ্গ প্রত্যঙ্গ তাসবীহ পড়ে এবং প্রথম আসমানে অবস্থানকারী ফেরেশতা তার জন্য সূর্য অস্ত যাওয়া পর্যন্ত মাগফিরাতের দোয়া করে। যদি রোজাদার এক কিংবা দুই রাকাআত নামাজ পড়ে তবে তার জন্য আসমানের আলো উদ্ভাসিত হয়ে যায়.......। (শুয়াবুল ঈমান, ৩য় খণ্ড, ২৯৯ পৃষ্ঠা।)
রোজাদারের জন্য আল্লাহ পাক অনেক নেয়ামত দান করেছেন। যারা সঠিকভাবে রোজা রাখবেন তারাই আল্লাহ পাকের এসব নেয়ামতের সৌভাগ্যবান হবেন।
আমিরুল মুমেনিন সৈয়্যদুনা হযরত আলী মুরতাজা (রাদি.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সা.) এরশাদ করেছেন, ‘যাকে রোজা পানাহার থেকে বিরত রেখেছে, রোজার প্রতি যার মনের আগ্রহ ছিলো, আল্লাহ তাআলা তাকে (রোজাদারকে) জান্নাতি ফলমুল আহার করাবেন এবং জান্নাতি পানি পান করাবেন। (শুয়াবুল ঈমান, ৩য় খণ্ড, ৪১০ পৃষ্ঠা।)
আল্লাহ রাব্বুল আলামীন প্রকৃত রোজাদারকে রোজার বদলে প্রতিদান হিসেবে হিসাব ছাড়াই সওয়াব (পুণ্য) দান করবেন।
হযরত কা’আবুল আহবার (রাদি.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, ‘কেয়ামতের দিন একজন আহ্বানকারী এই বলে আহ্বান করবেন, প্রতিটি আমলকারিকে তার আমল এর সমান সওয়াব দেয়া হবে, শুধুমাত্র কোরআনের জ্ঞানে জ্ঞানীগণ ও রোজাদার ব্যতীত। তাদেরকে অফুরন্ত ও হিসাব ছাড়া সওয়াব দেওয়া হবে।' (শুয়াবুল ঈমান, ৩য় খণ্ড, ৪১৩পৃষ্ঠা।)
রোজার প্রতিদান হিসেবে আল্লাহ তাআলা রোজাদারকে জাহান্নাম থেকে অনেক দূরে রাখবেন।
সাহাবি হযরত আবু সাঈদ খুদরী (রাদি.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সা.) এরশাদ করেছেন, `যে ব্যক্তি আল্লাহ তাআলার পথে একদিন রোজা রাখবে আল্লাহ পাক তার চেহারাকে জাহান্নাম থেকে সত্তর বছর দূরে রাখবেন।' (বুখারি শরীফ, ২য় খণ্ড, ২৬৫পৃষ্ঠা, হাদিস-২৮৪০)
তাই আসুন, রমজানের সবগুলো রোজা পালনের মধ্যদিয়ে আমরা মহান রবের সাক্ষাত লাভের সৌভাগ্যবান হই। আল্লাহ আমাদের সবাইকে কবুল করুন...আমীন।